বাংলা কবিতা

প্রণয়

হৃদয়ে শোণিত ধারা ঝরায়ে অঝরে, অধরে অধরসুধা দিয়েছি যারে, হৃদয়ে জ্বলিল অনল তাহারই তরে। বক্ষে বক্ষে মিলে গড়িনু স্বপ্নালয়,

শেষ থেকে শুরু

একদিন তোমরা শুনবে মোর সাঙ্গ হলো জীবন খেলা; যাদের কাছে প্রিয় ছিলুম সেদিন করবে তারা অবহেলা। ভুবন মাঝে আমি ছিলুম তোমাদের চোখের মনি, মরনের পরে আমার দেহ বোঝা হবে তোমার জানি।

ভালবাসি

আমার চোখে চোখ রেখে কাটিয়ে দেবে হাজার বছর, তাই বুঝি আমায় ছেড়ে গড়লে তুমি সুখের বাসর। আমার হাতে হাত রেখে ভাসিয়েছিলে সুখের ভেলা, সুখের তরে আমায় নিয়েখেললে এ মন লিলা খেলা।

ক্যাম্পাস্

নবজন্ম আজি লয়েছি হেথা ভুলে গিয়ে মম দুঃখ ব্যথা, তোমারই লয়েছি রিক্ত হৃদয়ে, তোমা আমি করে আপন-

ভালবাসা

ভালবাসা মরিচিকা করে শুধু তারে একা হয় যদি পরিণয় অনুগ, প্রেমের ছলনা টানে তাকিওনা নারীর পানে উজাড়ে আপন বুক।

এক মাসের ডিটেনশন

একমাস একসাথে থাকবে ওরা দিবা রাতে গল্প হবে খেলা হবে শুয়ে রবে একইসাথে, মজাই হবে, ফ্রি খাওয়া পাবে এই হাজতে। ক্ষমতার অপব্যবহার হয়েছিলো গোচর সাথে ছিলো এতোদিনে অনেক দোসর, আজিকে তাদের কেউ নেইকো সাথে।

বন্ধু তুমি দাওগো দেখা

হয়নি দেখা তোমা সনে, তাইতো এতো কৌতুহল, কখনও ভাবি সত্য সবই, হইতো আবার সবই ছল। যেদিন আমার ইনবক্সে, দেখলাম নাম প্রিয়াংকা, ওপেন করে মেইল তোমার, হৃদয়ে উঠলো বেঝে ঝংকা।

সুখ

স্বার্থ পরায়ণে বিত্ত ভুবনে খুঁজছো মিছে সুখ, অর্থ কার্পণ্যে ভাবনা অকল্যাণে রয়েছে ধরার দুখ। পরের তরে ত্যাগের পরে সর্ব সুখ মেলে, মনের তীরে লও নাও ভীরে ভেদাভেদ সব ভুলে।

তোমার আমি

আমিতো আমার নয় হয়েছি তোমার, তুমি ছাড়া কেমনে বাঁচি বলো আর। কাটেনা সময় আর তোমার বিহনে, তুমি জড়িয়ে আছো আমার জীবন মরনে।